ত্রাতা করোনা


মুখ ছিল, কথা ছিল, হাসি শুধু ছিল না;
চোখ ছিল, জল ছিল, মোছাবার ছিল না।
ফাঁকা হাত সাড় নেই, ধরবার লোক কই?
আম্ফানে চাল নেই, পাকা ধানে পড়ে’ মই।
ডানাহীন পরিযায়ী হেঁটে হেঁটে ক্লান্ত;
ঠিক পথে চলেছে তো নাকি দিগভ্রান্ত?
আরো কত যেতে হবে, খালি পেটে নেই ভাত;
মন্ত্রীরা বুলি ঝাড়ে বগলে গুটিয়ে হাত।
বড়লোক উড়ে আসে ওরা যে উচ্চকোটি;
মধ্যবিত্ত কাঁদে হারিয়েছে রুজিরুটি।
উপবাসে গরীবেরা মরছে রে প্রতিদিন-
কারো আছে ব্যাংকলোন কারো কারো কৃষিঋণ।
তিনমাস ই.এম.আই. না দিলেও চলবে;
তিনমাস পেরলেই কার বাপ শুধবে?
শ্রমিকেরা শ্রম দিতে আজো আছে প্রস্তুত;
করোনা করোনা বলে ভয় আছে মজবুত।
গাড়ি চাই বাড়ি চাই চাই বউ সুন্দরী;
সব আজ রসাতলে জানি না বাচি কি মরি।
করোনার তান্ডব আজ ভাই আসেনি;
বহূকাল এসেছে গো চোখ মেলে দেখোনি।
যেদিন ঐ পালদাদু মারা গেলো পাড়াতে-
রোগে নয় ভোগে নয় বয়সটা বাড়াতে।
কই কেউ যাইনি তো তার শেষ লগনে;
অঘোষিত ভাবে সব ছিল লকডাউনে।
ওটাও তো ছিল ভাই মানবিক করোনা;
আজ সেটা হয়ে গেছে ভাইরাল করোনা।
রাশি রাশি কাজ পড়ে ফেলে করি পায়চারি,
বেশি কথা হবে না চাকরিটা সরকারি।
না পোশালে চলে যান, নয় দিন ছেড়ে ভাই;
দেমাকটা বেশি খেলে লিখে দেব ছুটি চাই।
ছুটি তো চাইনি দাদা, কে যে ছিল ছুটিদাতা?
প্রথম পনেরো দিন করোনাই ছিল ত্রাতা।
কি যে ভালো লাগছিল পুলকিত ছিল মন;
দিনে দিনে মনে হল ছুটি না নির্যাতন।
চারিদিকে চিৎকার চাই ত্রান চাই ত্রান,
কেউ পাক নাই পাক রাজারানীর পরিত্রান।
জি.ডি.পি. তো পড়ে গেছে, চাকরির খোঁজ নাই;
অজুহাত পাওয়া গেছে ত্রাতা সেই করোনাই।

পোষ্টটি কেমন লাগল?

মতামত দিতে আপনাকে অবশ্যই লগিন থাকতে হবে।

গড় মান 0 / 5. মোট মতামত 0

আপনিই প্রথম মতামত দিন।

আপনার ভালো লাগেনি শুনে দুঃখিত!

কিভাবে উন্নতি করা যায়?

কিভাবে আরও উন্নত করা যায়, সে সমন্ধে আপনার মতামত দিন।

RUPAK SARKAR

Author: Rupak

Leave a Reply