প্রাপ্তি

প্রায়শই আমাদের সমাজে মেয়েদের কে এই পৃথিবীর একটি “ভার প্রাপ্ত কলস” বলে মনে করা হয়। কিছু মানুষ আছে তারা কেন জানি না বুঝতেই চান না নারীরাই হলেন “পরমা প্রকৃতি”, নারী আছে বলেই প্রকৃতির ভারসাম্য আজ বজায় আছে, কিন্তু কিছু মানুষের কাছে নারী শুধু মাত্রই একটি শব্দ, যার কোনো প্রাণ নেই। তারা কেন বুঝতে চান না জানি না, যে এই নারী কে যদি বিন্দুমাত্র সুযোগ দেওয়া হয়, তাহলে তারাও পরিবর্তনের হাওয়ার সঙ্গে তাল মিলিয়ে নিজেকে প্রথমা করে তুলতে পারবে, তারা পারবে সেই সব মানুষদের মনের জরাজীর্ণ তা কে নস্যাৎ করে নিজেদের শ্রেষ্ঠা পরিণত করতে। কিন্তু ভাগ্যের এ এমন বিড়ম্বনা যে তারা নারী কে শুধু মাত্র পন্য ছাড়া আর কিছুই বোঝেন না।

যে সময়কার কথা বলবো সেটি ছিল দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ এর পরবর্তী। এরকমই সময়ে দাঁড়িয়েছিল গল্পের আসল চরিত্র প্রাপ্তি। বছর চোদ্দ কি পনেরোর একটি ছোট্ট মেয়ে। তার পরিবারে ছিল বাবা, মা, আর তার ছোট্ট ভাই। বাবা ছিলেন এক সাধারণ চাষী, আর সেই সময় চাষ করে যে কি পরিমান অর্থ উপার্জন হতো তা বলাই বাহুল্য, আর তাতেই কিভাবে যে তাদের জীবন নির্বাহ হতো তা তাদের জীবনের রেখাপাত দেখেই বোঝা যেত। পরিস্থিতি তাদের কাছে এতটাই কঠিন ছিল যে বছর ছয়ের ছেলে টিকে দুধ দিতেও তারা ব্যর্থ ছিল।
এ হেন পরিস্থিতিতে মেয়ের স্বপ্ন ছিল নিজেকে প্রতিষ্ঠা করার। কিন্তু স্বপ্ন তবেই বাস্তব হয় যদি থাকে সকলের সহযোগিতা এবং অবশ্যই যা প্রয়োজন হয় তা হলো অর্থের। তার দুটোই যখন ছিল না তখন প্রাপ্তির কপালে এটাই প্রাপ্তি ছিল তার সকল আকাঙ্খা গুলিকে বিসর্জন দেয়ার। কিন্তু এতে ও সমাজ ক্ষান্ত থাকেনি তারা বারবার প্রমান করেছে, যে সে সমাজের সত্যি একটি ভার, যাকে বিবাহ নামক মন্ত্রে দীক্ষা না দিলে তার বাবা মার মুক্তি নেই। তাইতো একটি বয়স্ক লোকের সঙ্গে নিজের অনিচ্ছায় শুধু মাত্র সমাজের দায় উদ্ধার করার জন্য সে বলি প্রদত্ত হলো।

এর কিছু দিন পরেই প্রাপ্তির খোঁজ আর কেউ পায়নি, সে চলে যায় সেই অসীম লোকে।
আমার প্রশ্ন শুধু এটাই প্রাপ্তির জীবনে প্রাপ্তি কি ছিল তবে এটাই? নামকরণের স্বার্থকতা হয়তো অন্যভাবেও হতে পারতো। কিন্তু ভাগ্যবিধাতার হয়তো এটাই মঞ্জুর ছিল। এ না হলে যে সমাজের দায় উদ্ধার হতো না।

পোষ্টটি কেমন লাগল?

মতামত দিতে আপনাকে অবশ্যই লগিন থাকতে হবে।

গড় মান 0 / 5. মোট মতামত 0

আপনিই প্রথম মতামত দিন।

আপনার ভালো লাগেনি শুনে দুঃখিত!

কিভাবে উন্নতি করা যায়?

কিভাবে আরও উন্নত করা যায়, সে সমন্ধে আপনার মতামত দিন।

Author: Priya

Leave a Reply